মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

নামঃভাষাসৈনিক ডাঃগোলামমাওলা

পিতাঃআলহাজ্বআঃগফুরঢালী,

 মাতাঃছুটুবিবি, 

জন্মঃ১৯২০সালের ২০অক্টোবর,

মৃত্যুঃ১৯৬৭সালের ২৩শে মে।

 

 

অতুল প্রসাদ সেন

 

পদবী : ব্যারিষ্টার ও গীতিকার

পিতার নাম : রামপ্রসাদ সেন

ঠিকানা : গ্রাম- মগর, থানা- নড়িয়া

জন্ম : ২০ অক্টোবর, ১৮৭১

কর্ম : তিনি আইন ব্যবসা ও গানের গীতিকার ছিলেন।

মৃত্যু : ২৬ আগষ্ট ১৯৩৪

 

 

আতাউল হক

 

পদবী : সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব

পিতার নাম : আবুল ফারাহ মুহাম্মদ আবদুল হক

ঠিকানা : গ্রাম-পাকইকপাড়া, থানা-নড়িয়া

জন্ম : ১৪ জুলাই ১৯৪০

কর্ম : বগুড়ার জেলা প্রশাসক, কেবিনেট ডিভিশন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ছিলেন ।

 

 

আবু ইসহাক

 

 

পদবী : ঔপন্যাসিক

পিতার নাম : মোঃ এবাদ উল্লাহ

ঠিকানা : গ্রাম-ফতেজঙ্গপুর, থানা-নড়িয়া

জন্ম : ০১ নভেম্বর ১৯২৬

কর্ম : সিভিল সাপ্লাই এর পরিদর্শক, পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তা ছিলেন ।

মৃত্যু : ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০০৩

 

গোপাল চন্দ্র ভট্রাচার্য্য

 

পদবী : বৈজ্ঞানিক

পিতার নাম : অন্বিকা চরণ ভট্রাচার্য

ঠিকানা : লোনসিং, নড়িয়া

জন্ম : ০১ আগষ্ট ১৮৯৫

কর্ম : শিক্ষকতা

মৃত্যু : ৮ এপ্রিল ১৯৮১

 

গোষ্ট পাল

 

পদবী : ফুটবলার

পিতার নাম : শ্যাম লাল পাল

ঠিকানা : ভোজেশ্বর, নড়িয়া

জন্ম : ২০ আগষ্ট ১৮৯৬

কর্ম : ফুটবল খেলোয়ার

মৃত্যু : ৮ এপ্রিল ১৯৭৫

 

পুলিন বিহারী দাস

 

পদবী : স্বাধীনতা সংগ্রামী

পিতার নাম : নবকুমার

ঠিকানা : লোনসিং, নড়িয়া

জন্ম : ২৪ জানুয়ারি ১৮৭৭

মৃত্যু : ১৭ আগষ্ট ১৯৪৯

 

রাম ঠাকুর

 

পদবী : সাধু/সন্নাসী

পিতার নাম : রাধামধব চক্রবর্তী

ঠিকানা : ডিঙ্গামানিক, নড়িয়া

জন্ম : ১৮৫৯ সাল

মৃত্যু : জানা যায়নি।

 

কর্নেল (অব:) শওকত আলী

 

পদবী : মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক,সংসদ সদস্য এবং ডেপুটি স্পীকার

পিতার নাম : মুনশি মোবারক আলী

ঠিকানা : লোনসিংহ, বাহের দিঘীর পাড়, নড়িয়া

জন্ম : ২৭ জানুয়ারি ১৯৩৭ সাল

কর্ম : সেনাবাহিনী কমিশন, কর্নেল ছিলেন ।

 

 

 

 

নবনিযুক্ত আইজিপি এ কে এম শহীদুল হকের জীবন বৃত্তান্ত

 

x

 
 
এ কে এম শহীদুল হক /ফাইল ফটো
এ কে এম শহীদুল হক /ফাইল ফটো
  

নবনিযুক্ত আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম, পিপিএম শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানাধীন নরকলিকাতা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

তিনি ১৯৮৪ সালের বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার মাধ্যমে ১৯৮৬ সালে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন।

পুলিশ সুপার হিসেবে তিনি চাঁদপুর, মৌলভীবাজার, চট্টগ্রাম ও সিরাজগঞ্জ জেলায় দায়িত্ব পালন করেছেন। ডিআইজি হিসেবে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, রাজশাহী রেঞ্জ এবং চট্টগ্রাম রেঞ্জে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও পুলিশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

শহীদুল হক ১৯৮৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজ কল্যাণে এমএসএস ডিগ্রি লাভ করেন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে এলএলবি এবং একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হতে এমবিএ ডিগ্রি লাভ করেন।

তিনি বাংলাদেশে কমিউনিটি পুলিশিং এর অন্যতম প্রবর্তক হিসেবে কমিউনিটি পুলিশিং ধারণাকে জনগণের নিকট জনপ্রিয় করে তোলেন। কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে পুলিশ এবং কমিউনিটির মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অপরাধ দমন ও উদ্ঘাটন, জননিরাপত্তা বিধান এবং সমাজের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে তিনি কার্যকর পদক্ষেপ নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে আমেরিকার নিউ জার্সি স্টেটের মেয়র তাঁকে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মাননা প্রদান করেন। 
 
চাকরি জীবনে অসামান্য অবদান ও কৃতিত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) এবং রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) এ ভূষিত হয়েছেন।

তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন- কম্বোডিয়া, এঙ্গোলা এবং সুদানে কৃতিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে জাতিসংঘের শান্তি পদকেও ভূষিত হন।

আইজিপি পদে পদোন্নতি লাভের পূর্বে তিনি সচিব পদমর্যাদায় বাংলাদেশ পুলিশের অ্যাডিশনাল ইন্সপেক্টর জেনারেল (প্রশাসন ও অপারেশন) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তিনি ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত এবং তিন পুত্র সন্তানের জনক।